• No products in the cart.

একাদশ শ্রেণীতে ভর্তি ও কলেজ নির্বাচন

এস এস সি পরীক্ষার পর কলেজ নির্বাচন ও গুরুত্বপূর্ণ যে যে জিনিস মাথায় রাখা উচিত সেগুলোই আলোচনা করা হয়েছে এই কমপ্লিট আর্টিকেল এ। এই আর্টিকেল থেকে তুমি যা যা জানতে পারবে।

  • এস এস সি পরীক্ষার পর কলেজ চয়েস করার ৭ টি হ্যাকস ।
  • কলেজ ভর্তি আবেদনের বিভিন্ন ক্যাইটেরিয়া
  • প্রতিটি শিক্ষাবোর্ডের সেরা কলেজ কোন গুলো ( আপডেটেড )
  • কলেজে ভর্তি হওয়ার আগে যে কাজ গুলো তোমাকে অন্য সবার থেকে তোমাকে এগিয়ে রাখবে। (ভিডিও)
  • জি পি এর উপর নির্ভর করে কলেজ চয়েস করার ক্ষেত্রে সাবধানতা।
  • সায়েন্স,আর্টস নাকি কমার্স কোনটি ভালো হবে তোমার জন্য, তা যেভাবে বেড় করবে।
  • বিভিন্ন বোর্ডের সেরা ১০ টি কলজের নাম
  • অনলাইনে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি
  • একাদশ শ্রেণীতে ভর্তির নীতিমালা

কিছুদিন আগেই এসএসসি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ হয়েছে। তোমাদের মধ্যে অনেকেই এমন আছো যারা তাদের আশানুরূপ ফল পেয়ে খুবই খুশি আবার এমন অনেককেই পাওয়া যাবে যাদের রেজাল্ট একেবারেই মনের মত হয়নি। তারা হয়তোবা মন খারাপ করে বসে আছো, আব্বু-আম্মু আর পাশের বাসার আন্টিদের নানান ধরণের কথা তো আছেই।নানা কটু কথা হয়তো এখন অন্যদের মত তোমাকেও শুনতে হচ্ছে। যেমনঃ “পড়াশোনা করে কি করবি,মাটি কেটে খা”, “তোকে না পড়িয়ে একটা কলাগাছ কে পড়ানোই ভালো ছিল” “এই রেজাল্ট দিয়ে রিকশাওয়ালা ও হতে পারবি না” । মেয়ে হলে, “এখনই তোর বিয়ের ব্যবস্থা করা উচিত” ইত্যাদি ইত্যাদি । যতকথাই পরিবারের সদস্যরা তোমাকে শোনাক না কেন শেষে ঠিকই তোমাকে কলেজে ভর্তি হতে হবে । তো চলো প্রথমেই দেখে নেয়া যাক এস এস সি পরীক্ষার পর কলেজ চয়েস করার ৭ টি হ্যাকস

বিগত বছরের ন্যায় এবারও এসএসসি রেজাল্টের উপর ভিত্তি করে প্রার্থী বাছাই করা হবে । একজন শিক্ষার্থী  সর্বনিম্ন ০৫টি এবং সর্বোচ্চ ১০টি কলেজে অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন । তাছাড়া সকল যোগ্যতার মাপকাঠিতে যে যোগ্য তাকেই ভর্তির জন্য বাছাই করা হবে ।আবেদন করার পূর্বে যে ধরনের বিষয়গুলো খেয়াল রাখতে হবে তা একটি চেকলিস্ট আকারে তোমাকে রেডি রাখতে হবে।

১ ) তোমার তালিকার পছন্দের কলেজগুলোর পূর্ববর্তী বছরের ফলাফল:

ফলাফল বলতে আমরা এইচ এস সি পরীক্ষার ফলাফলের কথা বুঝাচ্ছি। আমাদের দেশে এখনও কোন একটা কলেজ ভালো অথবা খারাপ এটি নির্বাচন করা হয় বেশিরভাগ সময়েই কলেজটির পূর্ববর্তী বছরগুলোর রেজাল্ট দেখে। তোমারও উচিত হবে কলেজের পূর্ববর্তী বছরের রেজাল্ট সম্পর্কে খোঁজখবর নিয়েই কলেজে ভর্তি হওয়া। কলেজের পাশের হার কেমন, পরীক্ষার্থী কত জন এবং জিপিএ-5 কতজন পেয়েছে, সেগুলো দেখে তারপর কলেজ নির্বাচন করো।

২) সিনিয়রদের বা বর্তমানে ওই কলজের পড়ুয়া ভাইয়া/আপুদের পরামর্শ নাওঃ

যে কলেজে ভর্তি হতে চাচ্ছো সে কলেজে তোমার পরিচিত সিনিয়র ভাইয়া আপু না থাকলে ফেইসবুকে ওই কলেজের নামে পেইজ ও গ্রুপ পাবে। সেখান থেকে অনেক ভালো ভালো আন্তরিক সিনিয়রের দেখা পাবে। তাঁদের কে ইনবক্সে জিজ্ঞেস করতে পারো তাঁর কলজের সার্বিক ব্যাপার গুলো নিয়ে। এরকম কয়েকটি কলেজের সিনিয়র দের সাথে কথা বললে তুমি তুলনামূলক একটি চিত্র পাবে। তাদের কাছ থেকে তাদের অভিজ্ঞতাগুলো জেনে নাও।সব ধরনের ভালো এবং খারাপ অভিজ্ঞতা জেনে নেয়ার ফলে তোমার কলেজ নির্বাচন প্রক্রিয়া অনেক সহজ হয়ে যাবে এতে ।তারপর নিজেই বিচার করে দেখো এই কলেজটি তোমার জন্য কতটা উপযোগী।

৩ ) মার্কস বিবেচনা করে অগ্রাধিকার প্রদান ( জিপিএ না )

বর্তমানে এসএসসি এবং এইচএসসি উভয় পরীক্ষাতেই মার্কশিট প্রকাশ করা হয়। প্রথমেই তোমাকে জানতে হবে, কলেজ কখনোই জিপিএ দেখে তোমাকে নির্বাচন করবে না। সবসময়ই তোমার মার্কস দেখে তোমাকে নির্বাচন করা হবে। তাই তোমার মোট নম্বর যোগ করে ফেলো এবং দেখো মোট ১৩০০ নম্বরের মধ্যে তুমি কত পেয়েছো। কয়েকটি ফ্যাক্টর ; তার মধ্যে অন্যতম হলো, তুমি কত পেয়েছো আর তোমার আশেপাশে সবাই কত পেয়েছে। একটু তুলনা করলেই তুমি পার্থক্য দেখতে পাবে আর আন্দাজ করতে পারবে তুমি আসলে কোন পর্যায়ে আছো।

এখন তুমি নিজেও অনুমান করো আর বড় ভাইয়া-আপুদের কাছে জিজ্ঞেস করে দেখো, আসলে কোন কলেজের জন্য কত নম্বর পাওয়ার প্রয়োজন হয়। সব যাচাই-বাছাই করে তারপর দেখো আসলে কোন কলেজে তোমার ভর্তি হবার চান্স আছে। হয়তোবা তোমার অনেক নামকরা একটা কলেজে ভর্তির ইচ্ছা ছিলো কিন্তু তোমার মার্কস খারাপ থাকার কারণে মনে হচ্ছে তুমি চান্স পাবে না। তাহলে তোমাদের কাছে একটা পরামর্শ থাকবে, সেই কলেজকে Priority list-এ জায়গা দিওনা।

যদি মনে হয় কোন একটা কলেজ যা তোমার প্রিয়, আর সেখানে চান্স পাওয়ার সম্ভাবনাও আছে, কেবল সে ক্ষেত্রেই তুমি সে কলেজকে অগ্রাধিকার দিবে। কারণ রেজাল্ট ৩ বার প্রকাশিত হয়। ৩ ধাপেই তুমি যদি লেগে থাকো তোমার স্বপ্নের কলেজ পেয়েও যেতে পারো!

আরেকটি বিষয় খেয়াল রাখতে হবে । তা হলো, কলজের “ব্রাঞ্চ”এর বিষয়ে সতর্কতা। ভালো করে খোঁজ খবর নিয়ে দেখতে হবে তুমি যে যে কলজে ভর্তি হতে চাচ্ছো সেই কলজের যদি কোন ব্রাঞ্চ থাকে তবে তার মধ্যে কোনটির জন্য তুমি আবেদন করছো।

৪) কলেজ থেকে তোমার বাসার দূরত্ব:

এইচ এস সি লেভেলের সিলেবাস এস এস সির সিলেবাসের থেকে অনেক বড় এবং এখানে সময় অনেক কম পাওয়া যায়, পড়া বেশি। এই অল্প সময়ের মধ্যে তোমার উচিত বেশিরভাগ সময় পড়ার কাজে ব্যয় করা। যাতায়তে সময় চলে গেলে পড়ার মোট সময় কমে যাবে প্লাস ক্লান্ত থাকার কারণে পড়ার এনার্জি ও আসে না। দিনে ৪ ঘণ্টা যাতায়তে নষ্ট হলে । মাসে সেটা ১২০ ঘণ্টা।

বাসা নিকটবর্তী যদি নাও হয়, তাহলে খেয়াল রাখতে হবে যেন কলেজ থেকে বাসায় আসা-যাওয়া করতে দিনে দুই বেশি সময় ব্যয় না হয়।

৫) শিক্ষক ও শিক্ষার্থীর সংখ্যার অনুপাতঃ

সাধারণত ঢাকার কিছু এবং ঢাকার বাইরের অনেক কলেজেই ছাত্র অনেক হওয়া সত্ত্বেও শিক্ষকের সংখ্যা অনেক কম থাকে। যার ফলে দেখা যায় অনেক গুরুত্বপূর্ণ সাবজেক্টের ঠিকমতো ক্লাস হয়না শিক্ষক স্বল্পতার কারণে।আরেকটি অনুপাতের দিকে নজর দিতে হবে, আর তা হলো ক্লাস ও পরীক্ষার অনুপাত। পর্যাপ্ত পরীক্ষা যদি কলেজ থেকে না নেওয়া হয় তবে স্টুডেন্টস দের প্রস্তুতি অসম্পূর্ণ থেকে যায়।

৬) কলজের ল্যাবরেটরির অবস্থা সম্পর্কে জানা:

বিজ্ঞানের শিক্ষার্থীদের জন্য এইচএসসি পরীক্ষার ব্যবহারিক অংশ অনেক গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু খুব কম কলেজেই পর্যাপ্ত সুযোগ সুবিধা সম্পন্ন ল্যাবরেটরি দেখা যায়। অনেক ল্যাবরেটরি থাকলেও ভালো ডেমোনেস্ট্রেটর না থাকার জন্যে খুব বেশি শেখার সুযোগ থাকে না!

তাই যে কলেজগুলোকে তোমার লিস্টের উপরের দিকে প্রাধান্য দিচ্ছো, তাদের ল্যাবরেটরির অবস্থা সম্পর্কে খোঁজখবর নিয়ে রেখো।

৭) গুগলকে কাজে লাগানো:

কলেজ নির্বাচন অনেকটা গবেষণা করার মত। তোমাকে একটু সময় নিয়ে গুগলে বাংলাদেশের কলেজ গুলো নিয়ে একটু ঘাঁটাঘাঁটি করা শিখতে হবে। এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটা স্কিল।

কলেজ ভর্তি আবেদনের বিভিন্ন ক্যাইটেরিয়া

২০১৮, ২০১৯ ও ২০২০ সালের এসএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা ভর্তির জন্য আবেদন করতে পারবে । তাছাড়া  ২০১৭, ২০১৮ ও ২০১৯ সালের বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় এর শিক্ষার্থীরাও একাদশ শ্রেণীতে ভর্তির জন্য আবেদন করতে পারবেন । তবে তাদের বয়সসীমা  ২২ বছর।

ঢাকায় বিভিন্ন সেরা কলেজগুলোতে

নটর ডেম কলেজ( Notor dame college) :

রাজধানীর মতিঝিল এলাকায় অবস্থিত ছাত্রদের জন্য দেশের অন্যতম শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নটরডেম কলেজে একাদশ শ্রেণির দুই ভার্সনে প্রতি বছর ২ হাজার ৬০০ শিক্ষার্থী ভর্তি করা হয়।গত বছরের ভর্তির তথ্য অনুযায়ী একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির ন্যূনতম যোগ্যতা বিজ্ঞান বিভাগের জন্য উচ্চতর গনিতসহ জিপিএ ৫, ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের জন্য জিপিএ ৪ এবং মানবিক বিভাগের জন্য জিপিএ ৩.২৫ থাকতে হবে।

ভিকারুননেসা নুন কলেজ(VNC) :

রাজধানীর বেইলী রোডে অবস্থিত কলেজটির মূল শাখায় মূলত নিজস্ব স্কুল শাখার শিক্ষার্থীদেরই ভর্তির ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার দেওয়া হয়। চলতি শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী শুধুমাত্র বিজ্ঞান বিভাগ থেকে পাশ করা অন্য স্কুলের শিক্ষার্থীরা ইংরেজি ভার্সনের সীমিত সংখ্যক আসনে ভর্তির আবেদন করার সুযোগ পাবেন। আবেদনের যোগ্যতা ন্যুনতম জিপিএ ৫।

রাজউক উত্তরা মডেল কলেজ( Rajuk uttara model college) :

উত্তরায় অবস্থিত কলেজটির চলতি শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণিতে শিক্ষার্থী ভর্তির বিজ্ঞপ্তি থেকে জানা যায়, এ বছর প্রভাতি ও দিবা শাখার বাংলা ও ইংরেজি মাধ্যমে মোট ১ হাজার ৬৩৮ আসনে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে। এর মধ্যে বাংলা মাধ্যমে ১ হাজার ২৬০ জন এবং ইংরেজি মাধ্যমে ৩৭৮ জন। আবেদনের ন্যুনতম যোগ্যতা বিজ্ঞানের জন্য জিপিএ ৫, ব্যবসায় শিক্ষার জন্য ৪ এবং মানবিক শাখার জন্য ৩.৭৫।

হলিক্রস কলেজ(holy cross college) :

রাজধানীর ফার্মগেটের হলিক্রস কলেজেও একাদশ শ্রেণিতে শিক্ষার্থী ভর্তির ক্ষেত্রে মূলত নিজস্ব স্কুল শাখার শিক্ষার্থীদেরই প্রাধান্য দেওয়া হয়। বহিরাগতদের জন্য সীমিত সংখ্যক আসন বরাদ্দ থাকে। এ বছর তাদের ভর্তি বিজ্ঞপ্তি আগামী ১৪ মে প্রকাশ করার কথা রয়েছে। গত বছরের ভর্তি বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী কলেজটি আবেদনের ন্যুনতম যোগ্যতা বিজ্ঞান বিভাগের জন্য জিপিএ ৫, ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের জন্য জিপিএ ৪ এবং মানবিক বিভাগের জন্য জিপিএ 3

সরকারি বিজ্ঞান কলেজ( Science college) :

বিজ্ঞান শিক্ষার জন্য বিশেষায়িত রাজধানীর ফার্মগেট এলাকায় অবস্থিত সরকারি বিজ্ঞান কলেজ চলতি শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে। কলেজটিতে মোট আসন রয়েছে ১ হাজার ২০০টি। কেবলমাত্র জিপিএ ৫ প্রাপ্ত ছাত্ররাই কলেজটি আবেদন করতে পারবেন।

মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজ( Ideal school and college) :

কলেজটির স্কুল শাখার শিক্ষার্থীদের ভর্তি করে আসন খালা থাকা সাপেক্ষে অন্য স্কুলের শিক্ষার্থীদের ভর্তি করা হয়। সেক্ষেত্রে আবেদনের ন্যুনতম যোগ্যতা বিজ্ঞান বিভাগের জন্য জিপিএ ৫, ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের জন্য ৪.২৫ এবং মানবিক বিভাগের জন্য 3

ঢাকা কমার্স কলেজ(dhaka commerce college):

মিরপুরে অবস্থিত ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের শিক্ষার্থীদের জন্য বিশেষায়িত ঢাকা কমার্স কলেজে বাংলা ও ইংরেজি ভার্সনে মোট ২ হাজার ৯০০ শিক্ষার্থী ভর্তি করা হয়। যার মধ্যে ইংরেজি ভার্সনের জন্য আসন বরাদ্দ ১০০টি। গত শিক্ষাবর্ষের ভর্তি বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী যেকোন বিভাগ থেকে মাধ্যমিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ জিপিএ ৩.৫০ অর্জনকারী শিক্ষার্থীরা কলেজটিতে ভর্তির জন্য আবেদন করতে পারবেন

ঢাকা সিটি কলেজ(dhaka city college) :

ধানমণ্ডির মিরপুর রোডে অবস্থিত কলেজটি ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি বিজ্ঞপ্তি অনুয়ায়ী, প্রভাতি ও দিবা শাখায় তিন বিভাগে মোট ৩ হাজার ৪৫০ জন শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে। এর মধ্যে ইংরেজি মাধ্যমের জন্য মাত্র ১৫০টি আসন বরাদ্দ। কলেজটিতে ভর্তির জন্য আবেদন করতে হলে বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীদের উচ্চতর গনিতসহ জিপিএ ৫, ব্যবসায় বিভাগের জন্য জিপিএ ৩.৭৫ (প্রভাতি) ও ৪ (দিবা) এবং মানবিক বিভাগের শিক্ষার্থীদের জিপিএ ২.৫০ থাকতে হবে ন্যুনতম।

রেসিডেনসিয়াল মডেল কলেজ ( Recidencial model college) :

মোহাম্মদপুরে অবস্থিত কলেজটির বাংলা ও ইংরেজি ভার্সনে মোট আসন রয়েছে ৯১০টি যার মধ্যে ইংরেজি ভার্সনের জন্য বরাদ্দ ১৪০টি আসন। কেবল ৫১৪টি আসনের জন্য অন্য স্কুল থেকে পাশ করা শিক্ষার্থীরা ভর্তি হতে পারবে। গত বছরের ভর্তি বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীদের জিপিএ ৫, ব্যবসায় শিক্ষার নিজস্ব শিক্ষার্থীদের জন্য ৪ এবং বহিরাগতদের জন্য ৪.৫ এবং মানবিক শাখার জন্য নিজস্ব শিক্ষার্থীদের জন্য ৩.৫ এবং বহিরাগতদের জন্য ন্যুনতম জিপিএ ৪ থাকতে হবে।

বীরশ্রেষ্ঠ নুর মোহাম্মদ পাবলিক কলেজ (BNMPC):

বিজিবির সদরদপ্তর পিলখানায় অবস্থিত কলেজটিতে এ বছর প্রভাতি ও দিবা শাখায় বাংলা ও ইংরেজি ভার্সনে মোট ১ হাজার ৯৩০ জন ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি করা হবে। এর মধ্যে ইংরেজি ভার্সনের জন্য ২০০ আসন বরাদ্দ। বিজ্ঞান বিভাগ থেকে জিপিএ ৫, ব্যবসায় শিক্ষার ছাত্র জিপিএ ৪ ও ছাত্রী ৩.৩৫ এবং মানবিক বিভাগ থেকে জিপিএ ৩ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীরাই কেবল আবেদন করতে পারবে।

বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সী আবদুর রউফ পাবলিক কলেজ (BMARPC):

পিলখানার অপর এ কলেজটি প্রভাতী ও দিবা শাখায় এ বছর মোট ১ হাজার ৭০০ ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি করা হবে। আবেদনের ন্যুনতম যোগ্যতা বিজ্ঞান বিভাগের জন্য জিপিএ ৫, ব্যবসায় শিক্ষার জন্য ৪.২৫ এবং মানবিক বিভাগের জন্য ৩.৭৫।

বিএএফ শাহীন কলেজ(BAF SHAHIN COLLEGE) :

ঢাকা সেনানিবাসে অবস্থিত কলেজটি চলতি শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণিতে শিক্ষার্থী ভর্তির বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে। আসন সংখ্যা প্রকাশ না করলেও আবেদনের ন্যুনতম যোগ্যতা উল্লেখ করা হয়েছে। বিজ্ঞান বিভাগ থেকে জিপিএ ৪.৫, ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগ থেকে ৩.৫ এবং মানবিক বিভাগ থেকে জিপিএ ২.৫ পেয়ে মাধ্যমিক উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা কলেজটিতে ভর্তির জন্য আবেদন করতে পারবে।

সেন্ট যোসেফ উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়(SJHS) :

মোহাম্মদপুরের সেন্ড যোসেফ উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের কলেজ শাখায় বাংলা ও ইংরেজি মাধ্যমে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির জন্য তিন বিভাগের জন্য আসন রয়েছে মোট ৭২০টি। আবেদনের ন্যুনতম যোগ্যতা বিজ্ঞানের শিক্ষার্থীদের জন্য জিপিএ ৫, ব্যবসায় শিক্ষার জন্য ৪.৫ এবং মানবিক বিভাগের শিক্ষার্থীদের জন্য জিপিএ ৩। ইংরেজি ভার্সনের ৮০টি আসনে কেবল বিজ্ঞান বিভাগ থেকে ৪.৮৮ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীই আবেদন করতে পারবে।

উদয়ন উচ্চ মাধ্যমিক(UDAYAN HIGH SCHOOL AND COLLEGE) :

উদয়ন উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের তত্ত্বাবধানে পরিচালিত এবং ক্যাম্পাসে অবস্থিত কলেজটিতে ভর্তির ক্ষেত্রে প্রাধান্য দেওয়া হয় ‍এর স্কুল শাখার শিক্ষার্থীদের। তারপরেও বিজ্ঞান ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের মোট ৫০০ আসনে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক বহিরাগত শিক্ষার্থী ভর্তির সুযোগ পায়। আবেদনের ন্যুনতম যোগ্যতা বিজ্ঞান বিভাগের জন্য জিপিএ ৪.৭৮ এবং ব্যবসায় শিক্ষার জন্য ৩.৭২। ( তথ্য গুলো ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহ করা হয়েছে )

কলেজে ভর্তি হওয়ার আগে যে কাজ গুলো তোমাকে অন্য সবার থেকে তোমাকে এগিয়ে রাখবে। (ভিডিও)

জি পি এর উপর নির্ভর করে কলেজ চয়েস করার ক্ষেত্রে সাবধানতা।

মেডিকেল ও বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তির জন্য এইচ এস সি ও এস এস সি পরীক্ষার জিপিএ অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। তাই এইচ এস সি তে জিপিএ ভালো আসবে সেটি যে কলেজে পড়লে নিশ্চিত করা বাস্তবসম্মত হবে সেই কলেজটিকেই বেছে নিতে হবে।যেসব কলেজে বিগত বছরের এইচ এস সি পরীক্ষার ফলাফল আশানুরূপ না সেসব কলেজের ব্যাপারে ভালো করে খোঁজ খবর নিতে হবে।

সায়েন্স,আর্টস নাকি কমার্স কোনটি ভালো হবে তোমার জন্য?

  • বিজ্ঞান পড়তে ভালো না লাগলে এস এস সির পর তুমি অন্য বিভাগেও ভর্তি হতে পারবে। বিজ্ঞান বিভাগ থেকে জিপিএ ভালো করা তুলনামূলক কঠিন হবে যদি এস এস সি লেভেলে ভালো করে না পড়লে যে কোন বিভাগ থেকেই জিপিএ ৫ পাওয়া দূরহ হয়ে যায়।
  • গণিত বা বায়োলজি ভালো না পারলে তোমাকে দ্বিতীয় চিন্তা করতে হবে এইচ এস সি তে বিজ্ঞান বিভাগ নিয়ে পড়তে।
  • বিজ্ঞান শাখা থেকে উত্তীর্ণরা শিক্ষার্থীরা যেকোনো বিভাগে ভর্তি হতে পারবে।
  • মানবিক শাখা থেকে উত্তীর্ণরা শিক্ষার্থীরা  মানবিক বিভাগের পাশাপাশি ব্যবসায় শিক্ষা শাখায়ও ভর্তি হবে পারবে
  • ব্যবসায় শিক্ষার শিক্ষার্থীরা ব্যবসায় শিক্ষা ও মানবিক বিভাগে ভর্তি হতে পারবে।

Top Colleges in Bangladesh Education board wise

Best Colleges in Dhaka Board

  1. Notre Dame College 
  2. Adamjee Cantonment College, Dhaka
  3. Viqarunnisa Noon College
  4. Dhaka City College
  5. Rajuk Uttara Model College
  6. Holycross College
  7. Dhaka College
  8. Ideal School and College
  9. Birsrestha Noor Mohammad Public College
  10.  Dhaka Commerce College

Best Colleges in Chittagong Board

  1. Chittagong College
  2. Govt. Haji Muhammad Mohsin College
  3. Chittagong Govt. City College
  4. Govt. Commerce College
  5. Faujdarhat Cadet College
  6. Chittagong Cantonment Public College
  7. Chittagong Govt. Women’s College
  8. Hazera Taju Degree College
  9. Bakolia Govt. College
  10. Ispahani Public School And College

Best Colleges in Rajshahi Board

  1. Rajshahi College 
  2. Rajshahi Cadet College
  3. Rajshahi Govt. City College
  4. Pabna Cadet College,Pabna
  5. Bogra Cantonment Public School College,Bogra
  6. Joypurhat Girls’ Cadet College,Joypurhat
  7. Rajshahi College,Rajshahi
  8. Shaheed Bulbul Govt. College,Rajshahi
  9. Joypurhat Govt. College.Joypurhat
  10. Naogaon Govt. College,Naogaon
  11. Sirajganj Govt. College,sirajganj

Best Colleges in Jashore Board

  1. Jessore Cantonment College,Jessore
  2. Jhenidah Cadet College,Jhenidah
  3. Mojid Memorial City College,Khulna,
  4. Military Collegiate College
  5. Khulna Govt. Girls’ College,Khulna
  6. Kushtia Govt. College,Kushtia
  7. Chuadanga Govt. College,Chaudanga
  8. Satkhira Govt. College,Sathkira
  9. Khulna collegiate girls’ school and college,Khulna
  10. Khulna Public College,Khulna

Best Colleges in Cumilla Board

  1. Cumilla Cadet College,Cumilla
  2. Feni Girls’ Cadet College,Feni
  3. Cumilla Victoria Govt. College,Cumilla
  4. Ispahani Public School And College,
  5. Ibn Taimia High School And College,
  6. Comilla Education Board Model College,Cumilla
  7. Feni Govt. College,Feni
  8. Brahmanbaria Govt. College,Brahmanbaria
  9. Noakhali Govt. College,Noakhali
  10. Comilla Commerce College,Cumilla

Best colleges in Barishal Board

  1. Barisal Cadet College,Barishal
  2. Barisal Government Women’s College,barishal
  3. Shaheed Abdur Rob Serniabat Degree College,Barishal
  4. Amritalal Dey College,barishal
  5. Pirojpur Government Girls’ College,Pirojpur
  6. Patuakhali Government Mahila College.Patuakhali
  7. Daulatkhan Abu Abdullah College.
  8. Government Syed Hatem Ali College,Bhola
  9. Maukaran B. L. P. Degree College
  10. Nizamuddin College

Best Colleges in Dinajpur Board

  1. Rangpur Cadet College.Rangpur
  2. Syedpur Govt. Technical College.Syedpur
  3. Dinajpur Govt. College,Dinajpur
  4. Rangpur Govt. College,Rangpur
  5. Thakurgaon Govt. College,Thakurgaon
  6. Gaibandha Govt. College.Gaibandha
  7. Cantonment Public School And College
  8. Nilphamari Govt. College,Nilphamari
  9. Kurigram Govt. Women’s College,Kurigram
  10. Police Lines School And College

Best College in Sylhet Board

  1. Jalalabad Cantonment Public School And College,Sylhet
  2. Sylhet Cadet College,Sylhet
  3. Sylhet Govt. College.Sylhet
  4. Sylhet MC College,Sylhet
  5. Sylhet Govt. Women’s College,Sylhet
  6. Moulavibazar Govt. College,Moulavibazar
  7. Srimongol Govt. College,Sylhet
  8. Sunamganj Govt. College,Sunamganj
  9. Modonmohon College
  10.  Sylhet Commerce College,Sylhet

অনলাইনে ভর্তি আবেদন

শিক্ষা বাের্ড কর্তৃক অনুমােদিত সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির জন্য অনলাইনে অথবা টেলিটক মােবাইল এস.এম.এস, এর মাধ্যমে আবেদন করতে হবে। অনলাইনে আবেদনের জন্য ওয়েবসাইট এর ঠিকানা: www.xiclassadmission.gov.bd

২য় পর্যায়ে কলেজ ভর্তি আবেদন

যেসকল ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী ইতিপূর্বে কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তির জন্য নির্বাচিত  হয়নি একটি নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যে ২য় পর্যায়ে ভর্তির জন্য আবেদন করতে পারবেন ।যাদের পূর্বে আবেদন ফি দেওয়া আছে তাদের নতুন করে কোন প্রকার ফি প্রদান করতে হবে না এবং তারা তাদের আবেদন আপডেট করেত পারবেন । যেমন : নতুন কলেজ সংযুক্ত করা বা বিয়োজন করা ।

আবেদন ফি সংক্রান্ত তথ্যাবলী

অনলাইনে আবেদনের ক্ষেত্রে ১৫০/- (একশত পঞ্চাশ) টাকা আবেদন ফি জমা সাপেক্ষে সর্বনিম্ন ৫(পাঁচ)টি এবং সর্বোচ্চ ১০(দশ) টি কলেজ/সমমানের প্রতিষ্ঠানের জন্য পছন্দক্রমের ভিত্তিতে আবেদন করতে পারবে। এস.এম.এস, এর মাধ্যমে প্রতি কলেজ/সমমানের প্রতিষ্ঠানের জন্য ১২০/- (একশত বিশ) টাকা আবেদন ফি প্রদান সাপেক্ষে একাধিক কলেজ/সমমানের প্রতিষ্ঠানে পর পর পছন্দক্রমের ভিত্তিতে আবেদন করতে পারবে। অনলাইন এবং এস.এম.এস. উভয় পদ্ধতিতে সর্বোচ্চ ১০(দশ) টি কলেজ/সমমানের প্রতিষ্ঠানে আবেদন করতে পারবে। একজন শিক্ষার্থী যতগুলাে কলেজে আবেদন করবে তার মধ্য থেকে শিক্ষার্থীর মেধা, কোটা (প্রযােজ্য ক্ষেত্রে) ও পছন্দক্রমের ভিত্তিতে একটি মাত্র কলেজে তার অবস্থান নির্ধারণ করা হবে।

ভর্তি ফি সংক্রান্ত নীতিমালা

  • সেশন চার্জসহ ভর্তি ফি সর্বসাকুল্যে মফস্বল/পৌর (উপজেলা) এলাকায় ১,০০০/- (এক হাজার), পৌর (জেলা সদর) এলাকায় ২,০০০/- (দুই হাজার), ঢাকা ব্যতীত অন্যান্য মেট্রোপলিটান এলাকায় ৩০০০/- (তিন হাজার) টাকার বেশি হবে না।
  •  ঢাকা মেট্রোপলিটান এলাকায় অবস্থিত এম.পি.ও.ভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহ শিক্ষার্থী ভর্তির ক্ষেত্রে ৫,০০০/(পাঁচ হাজার) টাকার অতিরিক্ত অর্থ আদায় করতে পারবে না।
  • ঢাকা মেট্রোপলিটান এলাকায় অবস্থিত আংশিক এম.পি.ও.ভুক্ত বা এম.পি.ও.বহির্ভুত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন এবং এম.পি.ও. বহির্ভূত শিক্ষকদের বেতন-ভাতা প্রদানের জন্য শিক্ষার্থী ভর্তির সময় ভর্তি ফি, সেশন চার্জ ও উন্নয়ন ফিসহ বাংলা মাধ্যমে সর্বোচ্চ ৯,০০০/- (নয় হাজার) টাকা। এবং ইংরেজি ভার্সনে সর্বোচ্চ ১০,০০০/- (দশ হাজার) টাকা গ্রহণ করতে পারবে। উন্নয়ন খাতে কোন প্রতিষ্ঠান ৩,০০০/(তিন হাজার) টাকার বেশি আদায় করতে পারবে না।
  • সরকারি কলেজসমূহ সরকারি পরিপত্র অনুযায়ী প্রয়ােজনীয় ফি সংগ্রহ করবে।
  • দরিদ্র, মেধাবী ও প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী ভর্তিতে সংশ্লিষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহ উল্লিখিত ফি যতদূর সম্ভব মওকুফের প্রয়ােজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

কলেজ/সমমানের প্রতিষ্ঠান পরিবর্তন

  • সংশ্লিষ্ট শিক্ষা বাের্ডের পূর্বানুমতি ছাড়া একাদশ শ্রেণিতে ভর্তিকৃত কোন ছাত্র/ছাত্রীর ছাড়পত্র ইস্যু করা যাবে না। কিংবা বাের্ডের পূর্বানুমতি ছাড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কর্তৃক ইস্যুকৃত ছাড়পত্রের বরাতে ভর্তি করা যাবে না।
  • শুধুমাত্র সরকারি/ আধাসরকারি, স্বায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠানের চাকুরিজীবী পিতা বা মাতার বদলিজনিত কারণে কোন ছাত্র/ছাত্রীর ছাড়পত্র ইস্যু করতে বা ভর্তি করতে বাের্ডের পূর্বানুমতি নেয়ার প্রয়ােজন হবে না। এরূপ ক্ষেত্রে বদলিকৃত কর্মকর্তা/কর্মচারির বদলির আদেশপত্র প্রদর্শন করে প্রতিষ্ঠান হতে ছাড়পত্র নেয়া যাবে এবং নতুন কর্মস্থলে যােগদানপত্র দেখিয়ে সংশ্লিষ্ট চাকুরিজীবীর সন্তানকে বদলিকৃত কর্মস্থলে উপযুক্ত কোন প্রতিষ্ঠানে ভর্তি করা যাবে। এক্ষেত্রে কলেজ/সমমানের প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষকে এ ধরনের ভর্তিকৃত ছাত্র/ছাত্রী ভর্তির ১৫ (পনের) দিনের মধ্যে রেজিস্ট্রেশন ফিসহ প্রয়ােজনীয় কাগজ-পত্র সংশ্লিষ্ট শিক্ষা বাের্ডে জমা দিতে হবে।
  • | কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কোন অবস্থাতেই সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান হতে এস.এস.সি. বা সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ কোন শিক্ষার্থীর মূল একাডেমিক ট্রান্সক্রিপ্ট উক্ত শিক্ষার্থী বা তার অভিভাবক ব্যতীত অন্য কোন ব্যক্তি বা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে হস্তান্তর করা যাবে না বা অন্য কোন অজুহাতে কোন শিক্ষার্থীর একাডেমিক ট্রান্সক্রিপ্ট আটক রাখা যাবে না।
Spread the love
  •  
  •  

0 responses on "একাদশ শ্রেণীতে ভর্তি ও কলেজ নির্বাচন"

Leave a Message

© 2020 Neuron Plus